চিরায়ত লাল বেনারসি কিংবা কাতান, তাতে সোনালি-রূপালির ঘন নকশা, গা ভরা গহনায় টুকটুকে বৌ বিয়ের আসরে দ্যুতি ছড়াচ্ছে। বৌ-সাজ মানে এই রকম একটা ছবিই চোখে ভাসে আমাদের। দিন কিন্তু পাল্টাচ্ছে! বিয়ে মানেই এখন লাল টুকটুক বৌ নয়, বিয়ে মানেই ভারী বেনারসি বা কাতানের বাধ্যবাধকতা নয়। কনেরা এখন বেছে নিতে পারে এমনকি সাদা রঙের শুভ্রতাও! সামনে আসছে শীতকাল, বাংলার ঘরে ঘরে বিয়ের ধুম পড়ার শ্রেষ্ঠ সময়। বিয়ে যাদের আসন্ন আর সাজপোশাক নিয়ে কপালে চিন্তারেখা ফেলে বসে আছেন, তারা চোখ বুলিয়ে নিন বিয়ের পোশাক নিয়ে এই লেখায়।

  • শুভ্রতায় বিয়ের সাজ

সাদা রঙের বৌ-সাজ আজকাল কম দেখা যায় না। সাদার মাঝে সোনালির আভিজাত্য ফোটেও চমৎকার, বিয়ের পোশাকে বেশ মানানসই দেখায়। কাজেই সাদা কিংবা চাপা সাদা রঙে বিশেষ ভালোলাগা থেকে থাকলে বিয়ের শাড়িতে নিয়ে আসুন এই রঙ। ঘিয়া রঙের শাড়িও বিয়ের আসরে ফুটফুটে দেখায় বেশ।

শাড়িতে এমন শ্বেতবসনা হলে গহনায় রাখতে পারেন রঙিন সব পাথরের সাজ। কয়েক রঙা কুন্দনের জমকালো নকশার ঝুমকো, সীতাহার কিংবা রুবির কাজ করা জরোয়া হারে নতুন বৌকে অনিন্দ্য সুন্দর দেখাবে। শাড়ির রঙ হালকা হলে সাজে আর গহনায় উজ্জ্বল রঙের ছোঁয়া রাখুন, এটাই মূল কথা।

  • নীল পরী বৌ

নীল রঙের শাড়িও কিন্তু বেশ চাহিদা রাখে বিয়ের বাজারে। কিছুটা ভিন্ন আমেজ চাইলে ফরমায়েশ দিয়ে তৈরি করিয়ে নিতে পারেন একটি নীল জামদানী। ঘন সোনালি নকশা করা নীল জামদানী শাড়ি বৌয়ের সাজে মন্দ লাগবে না, বরং নজর কাড়বে সবার। এই শাড়ির সাথেও গহনায় রুবির আভিজাত্য মানানসই। কেবল স্বর্ণ আর সাদা কুন্দনের মেলবন্ধন করেও বানাতে পারেন গহনা, কিংবা বেছে নিন মুক্তোর আধিক্য। নীল শাড়ির সাথে দারুণ লাগবে।

  • পিচের স্নিগ্ধতা

ঠিক গোলাপি রঙটা শাড়িতে চাচ্ছেন না, কিন্তু কাছাকাছি কোন রঙে বিয়ের শাড়ি খুঁজছেন তো পিচ হলো আপনার জন্য আদর্শ রঙ। ভীষণ মিষ্টি এই রঙটা মানিয়ে যায় যেকোন মেয়েকেই, তা গায়ের রঙ যাই হোক না কেনো। পিচের সাথে সোনালি কিংবা রূপালি ইচ্ছে মতন রঙের নকশায় শাড়ি বেছে নিতে পারেন বিয়ের দিনের জন্য। এর সাথে গহনায় সবুজাভ রঙের পাথর বেশ মানাবে। চলতে পারে মুক্তোর সাজও।

  • পেস্তা রঙের চমক

নরম সবুজাভ এক রঙ এই পেস্তা রঙ, অনেকের বেশ প্রিয় এই রঙটা বিয়ের শাড়িতেও অনায়াসে উঠে আসতে পারে। পেস্তা রঙকে জমিন বানিয়ে অন্যান্য উজ্জ্বল রঙের ছোঁয়ায় সাজাতে পারেন বিয়ের শাড়িটা। নীল, রাণী রঙ, কমলা বা লাল রঙের ভারী নকশা দারুণ লাগবে পেস্তা রঙা শাড়িতে। একই সাথে স্নিগ্ধতা আর জমকালো ভাব ফুটে উঠবে বিয়ের সাজে। গহনায়ও তাই পাথরের ব্যবহার চলতে পারে ইচ্ছে মতন, হরেক রঙে।

  • বাদামি বৌ

সোনালি রঙের শাড়ি বিয়ের জন্য নতুন কিছু নয়, নতুন কিছু ভাবলে বরং বাদামি শাড়ি পরতে পারেন নিজের বিয়েতে। রঙটা চাপা সোনালি রঙের কাছাকাছি, তার মাঝে সোনালি সুতোর কাজ মিলেমিশে চমৎকার দেখাবে কিন্তু। পাড়ে, আঁচলে মেরুন অথবা টকটকে লাল নকশা থাকবে শাড়িতে। সনাতনী সোনার গহনা আর লালচে ছোঁয়ায় সাজের ছটা, বেশ মানাবে নতুন বৌকে।

ছবি – ফটোগ্রাফারস.ক্যানভেরা.কম
লিখেছেন –  মুমতাহীনা মাহবুব

Comments

comments